ক্লাউড হোস্টিং কিভাবে কাজ করে ?How could hosting works?

0
333

বর্তমান সময়ে ওয়েব হোষ্টিং ইন্ডাস্ট্রিতে অন্যতম একটি বাজওয়ার্ড হচ্ছে ক্লাউড হোষ্টিং। বিশেষ করে সম্প্রতি সময়গুলোতে শেয়ার্ড হোষ্টিং এর নানামুখী সমস্যার ফলে বেশীরভাগ টেক সেভিরাই ক্লাউড সল্যুশনে ঝুকছেন। এই আর্টিকেলে আমরা জানবো ক্লাউড হোষ্টিং কি, কিভাবে কাজ করে এবং এর আদ্যোপান্ত বিষয়।

ক্লাউড হোষ্টিং কি?

সোজা কথায় বলতে গেলে অনেকগুলো সার্ভারের সমন্বয়ে যে হোষ্টিং তৈরী হয় তাকে ক্লাউড হোষ্টিং বলে। সাধারণত একটি শেয়ার্ড হোষ্টিং একটি নির্দিষ্ট সার্ভারে হোষ্ট করা থাকে ফলে কোন কারণে যদি সেই সার্ভারে কোন সমস্যা হয় তবে সার্ভারে থাকা সকল একাউন্টে এফেক্ট পড়ে।

অনেকগুলো সার্ভারের রিসোর্স, স্টোরেজ এবং সিপিউ এর সমন্বয়ে তৈরী হোষ্টিংয়ে যখন আপনার ওয়েবসাইট হোষ্ট করা থাকে তখন কোন সার্ভারে সমস্যা হলেও অন্যান সার্ভার এর রিসোর্স ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট শতভাগ সময়জুড়ে লাইভ থাকতে পারে। আর এজন্য ক্লাউড হোষ্টিং এর ডাউনটাইম জিরো হয়।

ক্লাউড হোষ্টিং এর সুবিধা:

অনেকগুলো সার্ভার এ হোষ্ট করার ফলে আপনার ওয়েবসাইটের ডাটা থাকে আরো সেফ এবং সিকিউরড। সাথে ভার্চুয়াল জিরো ডাউনটাইমের মাধ্যমে শেয়ার্ড হোষ্টিং এর ডাউন হওয়ার ভয় থেকে মুক্ত থাকা যায় শতভাগ।

প্রিমিয়াম সিডিএন কিভাবে কাজ করে?

আমরা জানি একটি ওয়েবসাইট যেকোন একটি নির্দিষ্ট লোকেশনে থাকা সার্ভার থেকে লোড হয়। অর্থ্যাৰ আপনার ওয়েবসাইটটি যদি ইউএসএ এর কোন লোকেশনের সার্ভারে হোষ্ট করা হয় তবে স্বাভাবিকভাবে বাংলাদেশে থাকা ইউজারদের কাছে এটি স্লো লোড হবে।

এটি খুবই সমস্যার ও বিশেষ করে বিশ্বব্যাপী কাজ করা ওয়েবসাইটগুলোর জন্য। সিডিএন বা কনটেন্ট ডেলিভারী নেটওয়ার্ক ঠিক এই সমস্যা সমাধানেই সিডিএন কাজ করে।

সিডিএন আপনার ওয়েবসাইটটির বিভিন্ন কপি বিভিন্ন লোকেশনে ষ্টোর করে যাকে ক্যাশিং (caching) বলা হয়। এই প্রসেসে আপনার মুল ওয়েবসাইটটি ইউএসএ তে হোষ্ট করা হলেও বিশ্বের আরো বিভিন্ন লোকেশনে এটির কপি ষ্টোর করে রাখা হয়।

এর ফলে যে লোকেশন থেকে ওয়েবসাইটে ভিজিট করা হয়, তার নিকটবর্তী লোকেশনে থাকা সিডিএন থেকে এটি লোড হয়। আর এতে এটি হয়ে উঠে আরো দ্রুত।